Divine Dreams

মোহাম্মাদ কাসীম এর সম্পূর্ণ সাক্ষাৎকার ০২ জানুয়ারী ২০১৯

সাংবাদিকদের সঙ্গে একটি সাক্ষাৎকারে তিনি (মোহাম্মাদ কাসীম) বলেন, ১২ বা ১৩ বছর বয়স থেকে আল্লাহ্ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা এবং নবী মোহাম্মাদ (সঃ) কে আমি আমার স্বপ্নে দেখি। আমার স্বপ্নের প্রথম চিহ্ন হলো যে, শত্রুরা পাকিস্তানে আক্রমণ করবে ও ভাঙ্গার চেষ্টা করবে, তবে আল্লাহ্ পাকিস্তানকে রক্ষা করবেন এবং সংরক্ষণ করবেন। আল্লাহ্র রহমতের মাধ্যমে পাকিস্তান অনেক উন্নতি ও অগ্রগতি করবে এবং এটি বিশ্বের ইসলামের নেতৃত্ব দেবে। আল্লাহ্ সুবহানাহু ওয়া তায়ালার বিশেষ রহমত ও আশীর্বাদ রয়েছে পাকিস্তানের উপর কারণ এটিই একমাত্র রাষ্ট্র যা ইসলামের নামে বিদ্যমানে আসে, তাই আল্লাহ্ নিজেই পাকিস্তানকে রক্ষা করবেন। তিনি আরো যোগ করেছেন যে তার সমস্ত স্বপ্নের সামগ্রিক বিবরণ তিনটি বিষয়ের উপর জোর দেয়; আমার স্বপ্নের মাধ্যমে আল্লাহ্ আমাকে শির্ক থেকে বিরত থাকতে বলেছিলেন এবং একই বার্তা নবী মোহাম্মাদ (সঃ) এর সকল উম্মতের জন্যও, সকাল ও সন্ধ্যায় যিকির এবং তাসবীহ পড়তে (কালীমা ও নামাজ পড়ার মাধ্যমে আল্লাহ্কে স্মরণ রাখতে) এবং শেষ ও চূড়ান্ত নবী ও রসূল মোহাম্মাদ (সঃ) এর প্রতি দুরূদ ও সালাম পাঠাতে। ২০১৪ সালে, প্রথমবারের মতো আল্লাহ্ আমাকে আদেশ করেছিলেন আমার স্বপ্নগুলো প্রচার করতে এবং জনগণের মধ্যে এই বার্তা পাঠাতে। ৩য় বিশ্বযুদ্ধ সম্পর্কে মোহাম্মাদ কাসীম আমাদের বলেছিলেন যে, এই যুদ্ধের সময় সমগ্র মধ্যপ্রাচ্য ধ্বংস হয়ে যায়। মানুষ মধ্যপ্রাচ্য থেকে পাকিস্তান অভিবাসনের শুরু করে এবং তারপর পাকিস্তান ৩য় বিশ্বযুদ্ধের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে। পাকিস্তানের কালো জঙ্গি বিমানগুলো এই যুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়া উভয়কেই পরাজিত করে এবং এভাবেই পাকিস্তান বিশ্বে নতুন সুপার পাওয়ার হিসাবে উঠে আসে।

You may also like

৩য় বিশ্বযুদ্ধ ও ইমাম মাহদী (আঃ) এবং গাজওয়া-ই-হিন্দ।
প্রেসিডেন্ট এরদোগানের মৃত্যুর পর তুর্কীতে ধ্বংস এবং ৩য় বিশ্বযুদ্ধের সূচনা হবে.....ইসরায়েল ফিলিস্তিন এলাকায় তার অপারেশন বৃদ্ধি করে এবং এতে দাজ্জালের জন্য একটি দুর্গ নির্মাণ করে.....আমেরিকা সম্পূর্ণভাবে ইসরায়েলকে সমর্থন করে এবং তাদের বুদ্ধিমত্তা [...]
৩য় বিশ্বযুদ্ধে মুসলিমদের প্রথম বিজয় ইমাম মাহদীর নেতৃত্বে গাযওয়া ই হিন্দে, কেয়ামতের বড় বড় আলামত।
৩য় বিশ্বযুদ্ধের শুরুতেই পাকিস্তানকে “তোরা বোরা” হিসেবে তৈরি করার চেষ্টা করা হবে। পাকিস্তান থেকে সকল প্রকারের শিরক এবং শির্কের সকল রূপগুলোকে ধ্বংস করা হবে তারপর আল্লাহ্ মুসলিমদেরকে ৩০০০ কালো জঙ্গি বিমান দ্বারা সাহায্য করবেন। এই দেখে সারা বিশ্ব [...]
অপেক্ষা করুন, আমরাও অপেক্ষা করছি।
২০১৪ এপ্রিল - আল্লাহ্ আমাকে বলেছেন, কাসীম, আমি চাই তুমি তোমার স্বপ্নগুলো সম্পর্কে সমগ্র বিশ্বকে বল এবং আমি চাই সবাই জানুক, কে তুমি ????? মোহাম্মাদ কাসীম আমাদেরকে বলেছিলেন যে, তার স্বপ্নে অন্যান্য সব জিনিসের উপর অগ্রাধিকার দেওয়া জিনিসটি হল শিরক [...]
আমি ইমাম মাহদী দাবি করিনা।
মোহাম্মাদ কাসীম বলেন, ২৩ ফেব্রুয়ারির স্বপ্নে আল্লাহ্‌ আমাকে বলেছেন, কিছু কাজ করতে এবং আমি ঐ কাজগুলো করছি। কিছু লোক আমাকে বলছে যে, আপনি লোকদের পথভ্রষ্ট করছেন, আল্লাহ্‌ এবং তার রসূল (সঃ) এর নাম ব্যবহার করে। কিছু লোক বলছে যে, আপনি নিজের মতো করে [...]
Interviews of MuhammadQasim Bin Abdul Karim End Time
মোহাম্মাদ কাসীম ইবনে আব্দুল কারীম। তিনি গত ২৮ বছর যাবৎ তাঁর রহমানী স্বপ্নগুলোর মাধ্যমে সর্বশেষ নবী মোহাম্মাদ (সঃ) এর সাথে ৩০০ বারেরও বেশি বার কথা বলেছেন। তার স্বপ্নগুলো সম্পর্কিত- কেয়ামতের আলামত, ৩য় বিশ্বযুদ্ধ, গাজওয়া ই হিন্দ, সমগ্র বিশ্বে [...]
পাকিস্তানের শাসক ও শির্ক এবং সেনা কর্মকর্তারা।
মানুষ আশাবাদী ছিল যে এখন ইমরান খান এসেছে সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে, কিন্তু কিছুই পরিবর্তন হয় না এবং সবকিছু আগের মত একই থাকে। কিন্তু আসিফ জারদারি সরকারের উপর রাগান্বিত হয়ে বক্তৃতা ও বড় রাজনৈতিক সমাবেশ শুরু করেন.....তখন আমি (মোহাম্মাদ কাসীম) নিজে [...]
মোহাম্মাদ কাসীম এবং আলেম-উলামা, মুফতি ও মুসলিম নেতাগণ।
.....কিন্তু আল্লাহ্‌ আমাকে বলেন, কাসীম, চিন্তা করোনা, আমি তোমার সাথে আছি, কেউ তোমাকে থামাতে পারবে না এবং আমি তোমাকে সাহায্য করব। তারপর আল্লাহ্‌ আমাকে সাহায্য করেন এবং সাধারণ মুসলিমরা আমার কথা বিশ্বাস করা শুরু করে। তারপর এই সংবাদ সারাবিশ্বে ছড়িয়ে [...]
৩য় বিশ্বযুদ্ধের প্রথম অংশ- পাকিস্তানকে তোরা বোরা বানানো হবে।
ভারত পূর্ব সীমান্ত থেকে পাকিস্তানকে আক্রমণ করবে এবং আফগানিস্তান পশ্চিম সীমান্ত থেকে আক্রমণ করবে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফকে হত্যা করা হবে। ভারত লাহোরে হামলা করবে এবং লাল রঙের পতাকাযুক্ত দেশটি পাকিস্তানকে সাহায্য করবে ও ভারতকে হুমকি দিবে [...]
1236
Page 1 of 6

1 thought on “মোহাম্মাদ কাসীম এর সম্পূর্ণ সাক্ষাৎকার ০২ জানুয়ারী ২০১৯”

Leave a Reply